নিজস্ব প্রতিবেদক: বড়াইগ্রামে দুই লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে সেনাবাহিনীর এক সদস্যকে ঘরে আটকে রেখে রাতভর নির্যাতন করার অভিযোগে মো. কাজেম আলী নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বড়াইগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তারেক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) কাজেম আলীকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। নির্যাতনের শিকার সেনা সদস্য হারুন অর রশিদ লালপুর উপজেলার কদিমচিলান গ্রামের ছলিম উদ্দিন মণ্ডলের ছেলে। তিনি বর্তমানে সিলেট সেনানিবাসে কর্মরত আছেন। আর কাজেম আলী বড়াইগ্রামের কেঁচোয়াকোড়া গ্রামের মৃত জামাত আলীর ছেলে।

হারুন অর রশিদ জানান, গত শুক্রবার রাতে সেনা সদস্য হারুন অর রশিদ ব্যক্তিগত কাজে কুমরুল গ্রামের একটি বাড়িতে গেলে সেখান থেকে বের হওয়ার সময় অভিযুক্ত কাজেম আলীসহ কয়েকজন যুবক তাকে আটক করে। পরে তাকে সেখানে আটকে রেখে দুই লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে রাতভর অমানুষিক নির্যাতন করে।

বড়াইগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তারেক জানান, সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সময় নির্যাতনকারী যুবকরা পালিয়ে যায়। পরে ওই সেনা সদস্যের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে মঙ্গলবার রাতে কাজেম আলীকে গ্রেফতার করা হয়।