নিউজ ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রামে গর্ভবতী মহিলাসহ দু’জনকে মারধর করে স্বর্ণালংকার ছিনতাইয়ের অভিযোগে বনপাড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী শাসছুন্নাহার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ তৌহিদুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দুপুরে উপজেলার জোয়ারী গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে মোজাম্মেল হক, তার শাশুরী শাহিদা বেগম ও শালিকা মোছাঃ হেলেনা বেগম মিলে পার্শ্ববর্তী বি-কাছুটিয়া গ্রামের মোঃ শফিকুল ইসলামের স্ত্রী শাসছুন্নাহারকে মারধর করে তার স্বর্ণের চেইন ছিঁড়ে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে শামছুন্নাহারের জানান, নুর ইসলামের ছেলে মোজাম্মেল হকের শাশুড়ী শাহেদার সাথে গত কালকে পারিবারিকভাবে ঝগড়া হয়। সেই জের ধরে জোয়াড়ী গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে মোজাম্মেল এসে আমাকে ও আমার গর্ভবতী মেয়ে পারভীনকে মারধর করে আমার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন ও একটি কানের দুল টান দিয়ে ছিঁড়ে নিয়ে যায়। আমি তখন চিৎকার করলে প্রতিবেশিরা আমাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক সুমনের কাছে নিয়ে যায়। পরে বনপাড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ তৌহিদুল ইসলাম জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও জানান তিনি।