লালপুর উপজেলার তিলকপুর গ্রামের মেধাবী মেয়ে ফাতেমা খাতুনের পড়ালেখার সকল দায়িত্ব নিলেন নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল। ছবি: আব্দুল মোত্তালেব রায়হান

নিজস্ব প্রতিবেদক: চা বিক্রেতার মেধাবী মেয়ে ফাতেমা খাতুন এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ৫ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পায়। কিন্তু অর্থের অভাবে তার ভর্তি ও পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। ফাতেমা লালপুর উপজেলার তিলকপুর গ্রামের চা বিক্রেতা ইউসুফ আলীর মেয়ে। সে গৌরিপুর স্কুল ও কলেজ থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পাশ করেছে।

স্থানীয় সাংবাদিকরা তাদের লেখনির মাধ্যমে বিষয়টি তুলে ধরেন। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল ফাতেমার ভর্তি সহ পড়াশোনার সকল দায়িত্ব নেওয়ার মত ব্যক্ত করেন। সে সময় সংসদ সদস্য ঢাকায় অবস্থান করায় আজ বুধবার (১১ ডিসেম্বর) সকালে ফাতেমাকে সাক্ষাতের সময় দেন। সকালে সাক্ষাতে স্থানীয় সংসদ সদস্য নগদ ১০ হাজার টাকা অনুদানের পাশাপাশি তার পড়াশোনা চালিয়ে যাবার সকল সহযোগিতা অব্যাহত রাখার ইচ্ছা পোষণ করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন লালপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল মোত্তালেব রায়হান, সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক মোয়াজ্জেম হোসেন, ফাতেমার চা বিক্রেতা বাবা মোঃ ইউসুফ আলী, গৌরিপুর স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক গোলাম কিবরিয়া, সাংবাদিক মিজানুর রহমান মিজান, নাহিদ হোসাইন, ইয়াছিন আলী বাবর প্রমুখ।

স্থানীয় সংসদ সদস্যের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ফাতেমা জানান, আমার বাবা বৃদ্ধ বয়সে চা বিক্রি করে আমাদের সংসার চালান। পড়াশোনা নিয়ে আমি চরম শঙ্কায় ছিলাম। এমপি মহোদয়, জেলা প্রশাসক, ইউএনও ও সাংবাদিক ভাইয়েরা আমার পাশে দাড়িয়েছে। আমি উনাদের সহযোগিতার মাধ্যমে পড়াশোনা শেষ করে নিজেকে দেশ ও সমাজের সেবক হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।

স্থানীয় সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল জানান, অর্থের অভাবে পড়াশোনা বন্ধ হবে, এটি আমি হতে দিতে পারি না। গরিব-মেধাবী শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিন ধরে সহযোগিতা করে আসছি, এ ধারা অব্যাহত রাখতে চাই।

কৃতজ্ঞতা: আব্দুল মোত্তালেব রায়হান