নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকায় তাবলিগ জামাতের বিবদমান দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এই পাল্টাপাল্টি হামলায় উভয়পক্ষের ২০-২৫ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কয়েক প্লাটুন পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

শনিবার (০১ ডিসেম্বর) সকাল ৮টার দিকে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা।এসময় একটি পক্ষ সড়কের একপাশে অবস্থান নেয়ায় উত্তরাঞ্চলগামী সড়ক বন্ধ হয়ে যায়। অপরদিকে আব্দুল্লাহপুরেও অবস্থান নিয়েছে আরেকটি পক্ষ। এতে করে মহাখালী থেকে আব্দুল্লাহপুর পর্যন্ত তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়।

মওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা জানিয়েছেন, তাদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আজ থেকে পাঁচ দিনের জোড় ইজতেমা হওয়ার কথা তুরাগ নদীর তীরে বিশ্বইজতেমা ময়দানে। এদিকে দেওবন্দপন্থী মওলানা জোবায়েরের অনুসারীরা আগে থেকেই ইজতেমা মাঠে অবস্থান করার কারণে সাদপন্থীরা ময়দানের ভেতরে প্রবেশ করতে পারছেন না। আর এ কারণেই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

তাবলিগ সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ব ইজতেমাকে কেন্দ্র করে তাবলিগের দুই গ্রুপের মধ্যে অনেক দিন থেকেই বিরোধ চলছে। তাদের মধ্যে বিদ্যমান দ্বন্দ্ব নিরসনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজে বেশ কয়েকবার উদ্যোগ নিয়েছেন। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল যে, ইজতেমা ময়দানের ভেতরে তারা কোনো ধরনের অনুষ্ঠান করবে না। কিন্তু তারা সেটিকে উপেক্ষা করে ইজতেমা ময়দানের ভেতরে এবং বাইরে অবস্থান নেয়।

তাবলিগ সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ৩০ নভেম্বর থেকে ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৫ দিনের জোড় (সম্মিলন) এবং আগামী ১১ জানুয়ারি থেকে ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত তিন দিনের ইজতেমা করার ঘোষণা দিয়েছেন ভারতের তাবলিগ জামাতের মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা। অপরদিকে তাবলিগের দেওবন্দপন্থীরা ঘোষণা দিয়েছেন, তারা ৭ ডিসেম্বর থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত জোড় এবং আগামী ১৮ জানুয়ারি থেকে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত তিন দিনের ইজতেমা করবেন।