নিউজ ডেস্ক: নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বকুল বলেছেন, আমরা দলের যে যেই স্তরেই দায়িত্ব পালন করি না কেন, দিনশেষে সকলে ঐক্যবদ্ধ। ঐক্যের রাজনীতি আছে বলেই বিএনপি অধ্যুষিত লালপুর এখন আওয়ামী লীগের শক্ত ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে। আমরা মানুষের স্বার্থে রাজনীতি করি। দলের স্বার্থে সকল প্রকার অপরাজনীতিকে রুখে দিয়ে এই সংগঠনকে আরো গতিশীল করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) দুপুরে লালপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন তিনি। লালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফতাব হোসেন ঝুলফুর সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট আবুল কালাম। বর্ধিত সভা সঞ্চালনা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইসাহাক আলী।

সভায় আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক এসএম কামল হোসেন এক মোবাইল বার্তায় উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, নওগাঁর নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত থাকায় তিনি আসতে পারেনি নি। তবে তিনি সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানিয়ে বলেন, বর্তমান ও সাবেক সংসদ সদস্য ও লালপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক বসে সংগঠনের সকল কার্যক্রম পরিচালনা সহ খসড়া কমিটি গঠন করবেন। তিনি নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় আহবায়ক কমিটি ঘোষণাসহ সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করবেন।

শহিদুল ইসলাম বকুল আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ঐক্যের প্রতীক আর আওয়ামী লীগ আমাদের ভরসাস্থল ও শেষ ঠিকানা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে এগিয়ে যাওয়া আজকের বাংলাদেশ বিশ্বের অনান্য দেশের কাছে ঈর্ষার কারণ। বর্তমান করোনাকালে বৈশ্বিক সংকটে যখন বিশ্ব বিপন্ন, তখন তার চৌকস নির্দেশনায় দেশের সামগ্রিক অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে। যেভাবে এদেশের মানুষের পাশে এবার শেখ হাসিনা দাঁড়িয়েছেন, বিশ্বের কোন দেশ তা করতে পারে নাই। দেশের স্বাভাবিক রেমিটেন্স প্রবাহ করোনাকালে শুধু অব্যাহতই থাকেনি বরং তা বেড়েছে। এই চরম সংকটকালে দেশের মানুষের আশা আকাঙ্খায় পরিণত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এখন দেশের মানুষ আমাদের সরকারের দিকে চেয়ে। এখন বিভেদের রাজনীতি গ্রহনযোগ্য নয়।তিনি বলেন, দীর্ঘদিন বিএনপির এই আসনে খুব কম সময় আওয়ামী লীগ জনগণের সেবা করার সুযোগ পেয়েছে। তাই আরেকটু উন্নত নাগরিক সেবা প্রাপ্তির সকলকে একটু ধৈর্য ধরার ও প্রশাসনকে সহযোগিতা করার অনুরোধ করছি।

জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট আবুল কালাম প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, সকল স্তরের আওয়ামী লীগের কর্মীদের দীর্ঘ সংগ্রাম ও রাজনীতির ফসলস্বরুপ আজ লালপুর-বাগাতিপাড়ার মানুষের সেবা করার সুযোগ পেয়েছে আওয়ামী লীগ। এ সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। যিনি সংসদে এ আসনের প্রতিনিধি, তাকে সহযোগিতা করতে হবে। করোনা সংকটের কারণে সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল উন্নয়নমুলক অনেক কাজ করতে পারেননি। শুধু তিনিই না, সারাদেশের সাংসদরা করোনা প্রতিরোধে যথেষ্ট সাহসী ভুমিকা পালন করেছেন। এই বাস্তবতাকে মেনে নিয়ে আমাদের কাজ করতে হবে।’ তিনি বলেন বিভেদ কাম্য নয়। দলের সকল ত্যাগী নেতা কর্মিকে মূল্যায়ন করতে হবে। সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

অপরদিকে বর্ধিত সভার বক্তব্যে দলের বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীরা মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণের জন্য উপজেলা নেতাদের নিকট দাবি জানান। এছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফতাব হোসেন ঝুলফু এবং সাধারণ সম্পাদক ইসাহাক আলী ঢাকায় আওয়ামী লীগ অফিসে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক কামাল হোসেনের মধ্যস্থতার কথা উল্লেখ করে দলকে সমন্বিতভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আহবান জানান।