নিউজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল ইসলাম মনু অভিযোগ করে বলেছেন, বিএনপি নিজেরা নিজেরা সহিংসতা তৈরি করে বুঝাতে চায় বাংলাদেশে নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নাই। আমরা নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট হতে দিবো না। আমরা উৎসবমুখর নির্বাচন চাই। নির্বাচন বানচাল করার চেষ্টা করছে সালাউদ্দিন।

বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় মনিরুল ইসলাম আরো বলেন, সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে এটা বলতে চাই, আমার এলাকার নির্বাচন খুব পরিচ্ছন্ন হবে এবং ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে যাবেন। এবং আমার নেত্রীকে উৎসবমুখর পরিবেশের মাধ্যমে ঢাকা-৫ উপহার দিবো ইনশাল্লাহ।

মনিরুল ইসলাম মনু বলেন, আমি কোনো সহিংসতা চাই না, আমি উৎসবমুখর নির্বাচন চাই। সালাহউদ্দিন আহমেদ আর নবীউল্লাহ নবীর মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ রয়েছে এটাকে পুঁজি করে আমাদের উপর দায় চাপানোর চেষ্টা করছে। কোনো অপপ্রচার মাধ্যমে এ নির্বাচন ধ্বংস করতে পারবেন না। সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে আমরা কাজ করতে যাচ্ছি। ইনশাল্লাহ আমি এলাকার ভোটারদের ব্যাপক সাপোর্ট পাচ্ছি আশাকরি জয়যুক্ত হয়ে এলাকার মানুষের পাশে থাকব।

মনু অভিযোগ করে আরো বলেন, বিএনপির স্বার্থ হাসিলের জন্য সালাহউদ্দিন আহমেদ তামাশা করতে এলাকায় থেকে সংসদ সদস্য প্রার্থী হয়েছে। এলাকার ছেলে নবীউল্লাহ নবী নবীকে মনোনয়ন না দিয়ে বহিরাগত সালাউদ্দিন আহমেদকে দিয়েছে। এই বহিরাগতরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বিভিন্ন ধরনের ইস্যু তৈরি করছে। আমি আমার প্রত্যেকটা কর্মীকে বলেছি আপনার কারো সঙ্গে সহিংসতা করবেন না। উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হবে ভোটের রেজাল্ট যাই হোক সেটা গ্রহণ করবো।

মনিরুল ইসলাম মনু দাবি বলেন, গতকাল আমার নির্বাচনী অফিসের পাশ দিয়ে বিএনপির সালাহউদ্দিন আহমেদের গণসংযোগ যাচ্ছিল সেখানে যুবলীগের নেতাকর্মীরা ছিল। গণসংযোগ নিয়ে যাওয়ার পথে সর্বপ্রথম আমার পার্টি অফিসে তারা ঢিল মারে। আমি ছিলাম না। এরপর সহিংসতা তৈরি হয়েছে। আমার কোনো লোকজন তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের সহিংসতায় লিপ্ত হয়নি।

তিনি আরো বলেন, প্রশাসনের দায়িত্ব যারা ছিল তাদের কাছে জিজ্ঞেস করেন সম্পূর্ণ অন্যায় ভাবে তারা আমার পার্টি অফিসে হামলা করেছে। সালাহউদ্দিন হেরে যাবে বিধায় তিনি সহিংসতা তৈরি করছে এবং অভিযোগের পাল্লা ভারী করছে।

মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল ইসলাম বলেন, আমার সাধারণ সম্পাদক হারুনার রশিদ মুন্না তিনি ও একজন এমপি ক্যান্ডিডেট ছিল কিন্তু সে তো আমার প্রধান নির্বাচন পরিচালনা কমিটি হিসেবে কাজ করছেন। এবং অত্যান্ত দায়িত্ব নিয়েই এ নির্বাচন করছে। সালাহউদ্দিন আহমেদ নবীউল্লাহ নবীকে ম্যানেজ করে নির্বাচনী মাঠে আসতে পারেনি এটা সালাউদ্দিন আহমেদের ব্যর্থতা। যার কারণে এসব সহিংসতা তৈরি করছে বিএনপির দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা।

নৌকা মার্কার প্রার্থী মনু আরো বলেন, সালাহউদ্দিন আহমেদ নিজেও বহিরাগত, বহিরাগত লোক এনে এলাকায় নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করছে। আপনারা জানেন এর আগে নির্বাচনের সালাহউদ্দিন আহমেদের নির্বাচন বাজেয়াপ্ত হয়েছিল। বিএনপি আর লোক পায়নি ভাড়াটিয়া লোক দিয়ে যাত্রাবাড়ী এলাকা হস্তান্তর করেছে।