নিজস্ব প্রতিবেদক: সিংড়ার চলনবিলে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে স্থানীয় দুপক্ষের সংঘর্ষে আলমগীর হোসেন (৩০) নামে একজন নিহত হয়েছেন। এসময় উভয়পক্ষে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন।

শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার দুর্গম পল্লী ২ নম্বর ডাহিয়া ইউনিয়নের মাধা বাঁশবাড়িয়া গ্রামে এ সংঘর্ষ ঘটে। নিহত আলমগীর হোসেন ওই গ্রামের মাহমুদ আলী প্রামানিকের ছেলে এবং কামাল মেম্বারের বড়ভাই।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফসলি জমির মালিকানা নিয়ে মাধা বাঁশবাড়িয়া গ্রামের কামাল মেম্বার ও কালাম প্রফেসরের মধ্যে পূর্ব বিরোধ ছিল। দুপুরে কালামের লোকজন বিরোধপূর্ণ ওই জমিতে পানি সেচ দিতে গেলে কামাল মেম্বার ও তার লোকজন বাধা দেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও উত্তেজনা বিরাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষ ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরেন।

শুক্রবার দুপুরে ইউপি সদস্য কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ওই বিরোধপূর্ণ জমি দখল করতে গেলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হন। এসময় প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আলমগীর গুরুতর জখম হন এবং সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হন। অন্য আহতরা হলেন, কামাল (৪৫), আওয়াল (৪০), রাসেল (২৮), শাহীন (৩০), বাবু (৩০), আঃ সালাম (৫৫), রইচ উদ্দিন (৭০), আসাদ (৪৮), ভুট্টু (৪৪), সাঈদ (৫০), আবুল হোসেন (৭০), আলমাস (৩০)।

আলমগীরকে নাটোর সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। অন্যদের সিংড়া, নাটোর সদর হাসপাতাল, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (রামেক) ও বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ডাহিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম বলেন, জমি নিয়ে বিরোধে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

সিংড়া থানার ওসি তদন্ত নেয়ামুল আলম বলেন, জমি নিয়ে বিরোধের ঘটনায় আলমগীর নামের একজন নিহত হয়েছেন। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সিংড়া সার্কেল) মীর আসাদুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।