মঙ্গলবার (১৮ই আগষ্ট) নাটোরের সিংড়ায় ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত মহিদুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে সিংড়া থানা পুলিশ। (বামে শিশুর ছবিটি প্রতীকী)।

বিশেষ প্রতিবেদক: নাটোরের সিংড়ায় ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত মহিদুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে সিংড়া থানা পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুর-এ-আলম সিদ্দিকী বিপিএম।

মঙ্গলবার (১৮ই আগস্ট) দুপুরে ভুক্তভোগী শিশুর পিতা বাদী হয়ে সিংড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করলে অভিযুক্ত মহিদুল ইসলামকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে উপজেলার নাছিয়ারকান্দি গ্রামের মৃত আঃ আজিজ মন্ডলের ছেলে। এর আগে গত শুক্রবার দুপুরে প্রতিবেশী দিনমজুরের শিশুটিকে একা পেয়ে ওড়না দিয়ে হাত-মুখ বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মহিদুল।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সিংড়া উপজেলার নাছিয়ারকান্দি গ্রামে নিজ বাড়িতে গত শুক্রবার দুপুরে ভূক্তভোগী শিশুকে একা পেয়ে মুখ ও হাত ওড়না দিয়ে বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ঐ গ্রামের মৃত আঃ আজিজ মন্ডলের পুত্র মহিদুল ইসলাম। পরে ভূক্তভোগীর চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে ধর্ষক পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে শিশুটির মা এসে স্থানীয়দের সহায়তায় শিশুটিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছে। নির্যাতিত শিশিুর বাবা-স্ত্রী কন্যাকে গ্রামে রেখে রাজশাহীতে থেকে দিনমজুরের কাজ করে সংসারের খরচ চালাতেন। মেয়ের নির্যাতনের খবর পেয়ে বাড়িতে ছুটে এসে ধর্ষকের বিরুদ্ধে দায়ের করেন মামলা।

মামলা দায়েরের পর আজ (মঙ্গলবার) সিংড়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে মহিদুলকে গ্রেফতার করে। বাদী তার মেয়ের ওপর চালানো পাশবিক নির্যাতনের উপযুক্ত বিচার দাবি করেছেন।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী শিশুর পিতা বলেন, স্ত্রী-মেয়েকে রেখে আমি রাজশাহীতে দিনমজুরের কাজ করি। দেরিতে খবর পেয়ে এসে মেয়েকে হাসপাতালে ভর্তি এবং থানায় মামলা করি। আমি আসামির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুর-এ-আলম সিদ্দিকী বিপিএম জানান, ধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আসিমিকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। আর শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে।

কৃতজ্ঞতা: মো. আবু জাফর সিদ্দিকী