নিউজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি আব্দুল লতিফ বিশ্বাস এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাতকে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

একইসঙ্গে পরবর্তী কাউন্সিল না হওয়া পর্যন্ত সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট কে এম হোসেন আলী (হাসান)-কে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবদুস সামাদ তালুকদারকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

রোববার (২২ নভেম্বর) আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। দলটির সভাপতির নির্দেশক্রমে ও সংগঠনের গঠনতন্ত্রের বিধি মোতাবেক এই অব্যাহতি দেয় কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতির নির্দেশক্রমে ও সংগঠনের গঠনতন্ত্রের বিধি মোতাবেক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি আব্দুল লতিফ বিশ্বাস এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত এমপিকে স্বীয় পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করেছে।’

আরো বলা হয়, ‘একই সঙ্গে পরবর্তীতে কাউন্সিল না হওয়া পর্যন্ত সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট কে এম হোসেন আলীকে (হাসান) ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুস সামাদ তালুকদারকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব প্রদান করেছে।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস আজ বিকেল ৪টায় বলেন, ‘আমরা এখন পর্যন্ত চিঠি হাতে পাইনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিষয়টি জেনে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। দলীয় সভাপতির নির্দেশক্রমে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানতে পেরেছি।’

বিষয়টি নিশ্চিত করে আওয়ামী লীগের রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন জানান, দলের সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দলকে ঐক্যবদ্ধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় দলের সভাপতি শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের মিলে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, সাবেক মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস বর্তমানে জেলা পরিষদের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ডা. হাবিবে মিল্লাত সিরাজগঞ্জ-২ (সদর-কামারখন্দ) আসনের সংসদ সদস্যের পাশাপাশি আওয়ামীপন্থী চিকিৎসকদের সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।