নিউজ ডেস্ক: গাজীপুর মহানগরীতে এক কিশোরীকে (১৪) গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি ধর্ষক আরিফ ওরফে সবুজ (২৮) কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব-১ এর গাজীপুর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন।

শুক্রবার রাত আড়াইটার দিকে মেট্রোপলিটন বাসন থানার তেলিপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ধর্ষক আরিফ ওরফে সবুজ শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী থানার বরুড়াজানি গ্রামের মৃত খোরশেদ আলমের ছেলে। তিনি নগরীর বাসন থানার টেকনগপাড়া এলাকায় বাসাভাড়া থেকে গ্যারেজ মিস্ত্রির কাজ করতেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‍্যাব-১ এর গাজীপুর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন, গত ১ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের সালনার স্থানীয় একটি স্কুলের ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে বাসায় ফেরার পথে অপহরণ করে আরিফসহ তার বন্ধুরা। পরে আরিফের বন্ধু রাসেলের সালনাস্থ ভাড়া বাসায় সারারাত ভিকটিমের হাত, পা, মুখ বেঁধে তিনজনে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে ও ভিডিও ধারণ করে।

পরে ভোর রাতে ভিকটিমকে হত্যার উদ্দেশ্যে হাত, পা, রশি দিয়ে বেঁধে মুখে কসটেপ এবং গলায় ওড়না পেচিয়ে বক্স খাটের ভেতর আটকে রেখে ধর্ষণকারীরা পালিয়ে যায়। গোঙ্গানীর শব্দে পাশের বাসার ভাড়াটিয়ারা এগিয়ে এসে দেখে পরিবারকে সংবাদ দিলে ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় ভিকটিমকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে গাজীপুর মেট্রো সদর থানায় একটি গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। শুক্রবার রাত আড়াইটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নগরীর তেলিপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি আরিফ ওরফে সবুজকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরো জানান, গ্রেফতারকৃত আরিফ ওরফে সবুজকে গাজীপুর মেট্রো সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় অন্যান্য পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টায় র‍্যাবের অভিযান অব্যাহত আছে বলেও জানান তিনি।