নিজস্ব প্রতিবেদক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাটোর জেলার চারটি আসন থেকে নির্বাচিত ৪ সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল, শফিকুল ইসলাম শিমুল, জুনাইদ আহমেদ পলক ও অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস শপথ নিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৩ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১ টায় সংবিধান ও কার্যপ্রণালিবিধি অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের ২৫৬ জনের শপথবাক্য পাঠ করেন। এসময় নাটোরের নবনির্বাচিত ৪ সংসদ সদস্যও পথবাক্য পাঠ করেন।

এদিকে নাটোর-১ থেকে প্রথমবারের মতো নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বকুলকে মন্ত্রীত্ব দেয়ার দাবি জানিয়েছেন লালপুর ও বাগাতিপাড়া উপজেলাবাসী। এব্যাপারে বাগাতিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আবুল হোসেন বলেন, নাটোর-১ আসনের সর্বস্তরের জনগনের প্রাণের দাবি একজন মন্ত্রী। নাটোর জেলার সব উপজেলা থেকে মন্ত্রী হলেও মন্ত্রী বঞ্চিত উপজেলা বাগাতিপাড়া থেকে নির্বাচিত আওয়ামীলীগের প্রথম এমপিকে এবার মন্ত্রী করার দাবি উঠেছে। আমরা বাগাতিপাড়া ও লালপুরবাসী প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রত্যাশা রাখি এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত ত্যাগী সৈনিক এমপি বকুলকে মন্ত্রী পরিষদের সদস্য হিসেবে দেখতে চাই।

অন্যদিকে নাটোর-২ থেকে টানা দ্বিতীয়বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শিমুল। জেলা সদরের সংসদ সদস্য হিসেবে মন্ত্রীত্ব তার প্রাপ্য বলে মনে করছেন নাটোর সদর ও নলডাঙ্গা উপজেলাবাসী। এব্যাপারে তেবাড়িয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সবুজ আলম মঞ্জুর বলেন, ‘জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা সদরের টানা দুইবারের নির্ব‍াচিত সংসদ সদস্য হিসেবে শিমুল ভাইকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় নাটোরবাসী। শিমুল ভাই দক্ষ সংগঠক, তিনি নাটোরে আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। আমরা আশা করি নাটোরবাসীর দাবির প্রতি সম্মান দেখিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা এবার শিমুল ভাইকে মন্ত্রী বানাবেন।’

এছাড়া নাটোর-৩ থেকে টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত সংসদ সদস্য জুনাইদ আহমেদ পলক বর্তমান সরকারের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তাকে পরবর্তী সরকারে পূর্ণমন্ত্রীত্ব দেয়ার দাবি জানিয়েছেন সিংড়া উপজেলাবাসী।

অন্যদিকে নাটোর-৪ থেকে পঞ্চমবারের মতো নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনা সরকারের প্রতিমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাকেও মন্ত্রীত্ব দেয়ার দাবি জানিয়েছেন গুরুদাসপুর ও বড়াইগ্রাম উপজেলাবাসী। এব্যাপারে জোনাইল ইউপি চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক জানান, ‘বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুরের মানুষ বারবার আওয়ামী লীগকে ভালোবেসে এ আসনটি উপহার দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করেছেন। তাই এবার আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ এলাকার ভোটারদের দাবির মূল্যায়ন দেখতে চান। আমাদের দাবি চলনবিল অধ্যুষিত এ এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে এবার অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস এমপিকে মন্ত্রী করা হোক।’

বড়াইগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) শেখ ইয়াকুব আলী হীরা জানান, ‘এলাকার উন্নয়নের স্বার্থেই এবার তাকে মন্ত্রী করার দাবি উঠেছে। এলাকার মানুষের ভোটে বারবার নির্বাচিত প্রবীণ এ রাজনীতিবিদকে মন্ত্রী করা হলে তবেই এ আসনের ভোটারদের যোগ্য সম্মান দেয়া হবে।’

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিশাল ব্যবধানে জয়লাভ করেছেন নাটোরের এই ৪ সংসদ সদস্য।